Monthly Archives: June 2015

ল্যাপটপ এর ব্যাটারি ড্রেইনিং

অবশেষে আমার HP laptop টা ঠিক ঠাক ক রয়ে রাইয়ান্স থেকে আনলাম..ভাঙ্গা হিঞ্জ ঠিক ক রতে গিয়ে প্রায় ৪ হাজার টাকা লেগে গেলো 🙁 …২০১২ তে কিনা…এখন ২০১৫ এর মাঝামাঝি…ব্যাটারি টাও মনে হয় রিপ্লেস্মেন্ট করতে হবে

আমাকে আরও কেয়ারফুল হতে হবে…ল্যাপ্টপ অফ ক রয়ে ঘুমাতে হবে…অ্যান্টি ভাইরাস স ব সময় আপডেট দিতে হবে…স্লিপ মোডে রাখা যাবে না…তাতে হয়তবা ল্যাপ্টপ এর হার্ড্ডিস্ক ডাউন হয়ে যাইতে পারে

আর সব  স ময় চার্জ দিয়ে রাখা যাবে না…মাঝে মাঝে এটাকে রেস্ট দিতে হবে…ব্যাটারি ক্যালিব্রেট করতে হবে

আমার পিসি টার HP Support এ ব্যাপার গুলা আছে নেট ঘেটে ঘুটে যা বুঝলাম

পাশাপাশি >
http://h30434.www3.hp.com/t5/Notebook-Hardware/Pavilion-dv4-1220us-quickly-draining-battery/td-p/16702

http://www.quora.com/What-are-the-best-practices-to-take-care-of-a-common-Li-Ion-battery-in-tablets-and-phones

এই লিংক গুলা দেখার পাশাপাশি নেটে এগুলা নিয়ে পড়াশুনা করতে হবে…অবহেলা করা যাবে না

ইনশাল্লাহ সব ঠিক হয়ে যাবে

ক্যালিব্রেট এর ব্যাপারেঃ
এখানে দেখলাম
http://www.ehow.com/how_6799600_calibrate-laptop-battery.html

Hard Disk Partition শেষ পর্যন্ত মনের মতন সফল হইলাম

আলহামদুলিল্লাহ

হেল্প ফুল সফট এর মধ্যে boot repair iso,gparted iso….LiLi দিয়ে বার্ণ করে ইউএসবি তে লাইভ সিডি র মতন/হিসেবে নিয়ে কাজ করেছি

আর Gparted টা অসাধারণ কাজের পার্টিশান এর জন্য

আর boot repair দিয়ে চাইলেই Grub ইন্সটল অথবা Windows এর জন্য MBR ইন্সটল করে নেয়া যায়

তবে মনে রাখতে হবে…ড্রাইভ এর পার্টিশানে যদি কোনো ওএস ইন্সটল করা থাকে তা যদি Gparted দিয়ে মুছে ফেলা হয়

তখন BIOS থেকে অপারেটিং সিস্টেম এর লিস্ট বা টেবিল টা মুছে যায় যার ফলে  আর কোনো ভাবেই কোনো অপারেটিং সিস্টেম এ ঢোকা যায় না

boot – repair দিয়েও সেটা আর রিকভার করা যায় না…ঐ ক্ষেত্রে নতুন ওএস ইন্সটল দেয়া ছাড়া আর কোণো উপায় থাকেনা এবং নাই ও(আমি খুজে পাইনাই) 🙁

যেমনঃ আমারটার ক্ষেত্রে আমি উবুন্তু ইন্সটল এর পর ও Windows এর এরর জন্য
BOOTMG Missing
ctrl+alt+delete to restart দেখাচ্ছিলো

আবার উবুন্তু র grub এর প্রব্লেম এর কারণে
grub rescue> টাইপ কথাবার্তা আশতেসিলো
সো বুঝে শুনে এগুতে হবে

যাই হোক আলহামদুলিল্লাহ এখন সব ঠিক আছে

তবে এগুলায় অনেক সময় কিল হয় যেমন…বুধবার সন্ধ্যা থেকে আজকে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত ডেস্কটপটার সামনে বসে আসি … এই সময়ে কেবল নামাজ,গোসল আর টয়লেট এর কাজ ছাড়া আর কোনো কাজ করতে পারি নাই…খাওয়া দাওয়া জিম একবারে ভুলেই গেসিলাম 🙁

আবার কালকে প্রেসেন্টেশান দিতে হবে অ্যাল্গরিদম শিখতে হবে তার পরদিন পরীক্ষা আছে…যাই হোক তবুও ইঞ্জিনিয়ারিং পরা শুরু করার পর এই ফার্স্ট এত বেশি টাইম আমার ডেস্কটপ টাকে দিতে পারলাম এই জন্য আমি খুশি

আল্লাহর অশেষ রহমত এটা
এক্সপেরিমেন্ট করতে পারসি নিজের মতন…এই অভিজ্ঞতা আমাকে র(raw) কিংবা মেটাল লেভেল এর  কোডিং এর প্রতি একটা আলাদা ভালবাসার সৃষ্টি করসে আবার হার্ড্ডিস্ক সেটাপ সম্পর্কেও একটা পরিস্কার ধারনা দিসে আলহামদুলিল্লাহ 🙂

টিপ্স এবং কিছু লিংক যা পরে কাজে লাগবে

http://askubuntu.com/questions/128233/windows-7-and-ubuntu-12-04-dual-boot-grub-not-showing

যেহেতু আমার সিডি ড্রাইভ টা কিছুটা ফল্টি তাই ল্যাপ্টপের ডেভিডি রমে যেকোনো ডিস্ক ভরে তা পেন্ড্রাইভ এ কপি করে ইউএসবি দিয়ে ডেস্কটপ থেকে বুট করা যায় 🙂

আজকে আর ধরার সময় না পেলেও গ্রাবটা পরে ঠিক করে ফেলবো যাতে win 7 এবং ubuntu দুইটাই শো করে যেহেতু আমার সেকেণ্ড হার্ড ড্রাইভ বা /dev/sdb এ দুইটাই ইন্সটল আছে…আর আমার দুইটা ওএস ই বিভিন্ন কারনে ভাল লাগে 🙂

আর বিভিন্ন অনলাইন ফোরামে দেখলাম দুইটা হার্ড্ডিস্ক থাকলে ডুয়েল বুট করতে স মস্যা হয় এক্ষেত্রে একটা খুলে নিয়ে কাজ করলে ভাল হয় যাই হোক আমি আমার সিপিএউ এর কেসিং খুলে চেস্টা করেছি যাই হোক আমি সিউর না ব্যাপারটা দেখা যাবে কাজ করতে গিয়ে পরে আবার 🙂

চিন্তাঃআমার যেটা মনে হচ্ছে…আমি যদি আবার বুট রিপেয়ার দিয়ে গ্রাব রিইন্সটল দেই উবুন্তুর পাশাপাশি উইন্ডোজ এক সাথে ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনা আছে…সময় পেলে পরে ট্রাই করতে হবে

হার্ডডিস্ক পার্টিশান

নতুন হার্ড ডিস্ক টা অনেক দিন পর পারটিশান করতে বসলাম …এতদিন যে ড্রাইভটাতে উবুন্তু দিয়ে চালাচ্ছিলাম সেটায় এখন রিসাইজ করছি জিপার্টেড লাইভ দিয়ে…ইউএসবি থেকে বুট করা এটা

মান টা অনেক টা এরক ম
/dev/sdb1 উইন্ডোজ এর জন্য NTFS টা 170.83GiB বা 174932 MiB (NTFS)[primary]
/dev/sdb3 উবুন্তু এর জন্য 184998 MiB(Mebabytes) বা 180.66GiB (EXT4)[primary]
sdb3 কে ডিলিট ক রে দিইয়ে এভাবে সেটাপ ক রেছি যাতে উইন্ডোজ আর উবুন্তু পাশাপাশি সুন্দর করে থাকতে পারে
{
/dev/sdb7 29998(30000)MB root / ext4
/dev/sdb8 19998(20000)MB swap
/dev/sdb9 143977MB /home ext4
}
/dev/sdb2 Extended space e অ্যালোকেটেড করে
/dev/sdb5 ব্যাকাপ এর জন্য 928.77 GiB বা 951061 (NTFS)[logical]
/dev/sdb6 গেমস এর জন্য NTFS টা 500.60GiB বা 512618 (NTFS)[logical]
Unallocated স্পেস 82.15GiB

৪ টার বেশী প্রাইমারী পার্টিশান একটা হার্ড ডিস্ক এ বানানো যায় না…এখেত্রে এক্সটেন্ডেড ভার্শান ক রে নেয়া প্রয়োজন

আর আরেকটা কথা এক্সটেন্ডেড পার্টিশান কেবল একটাই থাকতে পারে মনে হয়