পরীক্ষার প্রস্তুতির শুরু —–

পরীক্ষার প্রস্তুতির শুরু ——–
By—–aryan ahmed
assistant commissioner of taxes

অমুক সার্কুলার কবে হবে ? এখন পড়া হচ্ছেনা, সার্কুলার দিলে পরে স্টাডি শুরু করব, আমার কি চান্স হবে, প্রিলি নাকি অনেক কঠিন পরীক্ষা এসব বিষয় কখনোই প্রিলিমিনারি প্রস্তুতির সময় ভাবতে হয় না । আপনি আপনার মত স্টাডি শুরু করে দিন, বসে থাকবেন না, স্টাডি কোন না কোন ভাবে কাজে আসেই । কোন অর্জিত জ্ঞানই বিফলে যায়না । এখন কাজে না এলে অন্যত্র কাজে আসে, এক পরীক্ষায় কাজে না এলে অন্য পরীক্ষায় সাহায্য করে । আপনাকে আপনার কাজের দিকে বেশি নজর দিতে হবে । কাজ করার পূর্বেই ভোগের আয়োজনের চিন্তা করলে কিভাবে হবে ? নির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে ছুটে চলুন না ? আজ থেকেই স্টাডি শুরু করে দিন । এমন একটা রুটিন করে ফেলুন – যাই হোক না কেন , প্রতিদিন নিজের মত কিছু সময় অবশ্যই স্টাডি করবেন । এটা আপনার জন্য কোন সময় ভালো হয় নিজে গুছিয়ে নিন, অন্যের দিকে তাকানো বাদ দিন । সবার অবস্থা ও পারিবারিক অবস্থান এক নয়, কাজেই অন্যের সাথে তাল মেলালে আপনার চলবে না । নিজের দিকে এবং নিজের পরিবারের দিকে তাকান , নিজেকে বেশি সময় দিন । সফলতার কোন নির্দিষ্ট সংজ্ঞা নেই, কোন না কোনভাবে দেখবেন ঠিকই ভালো কিছু করেছেন । শুধু একদিকে হাঁ করে তাকিয়ে না থেকে বিকল্প কিছুরও প্ল্যান করে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ । আজ থেকেই রুটিন একটা করে স্টাডিতে নেমে যান, আগেও বলেছি বিগত বছরের প্রশ্নগুলো আপনার জন্য ভালো একটা গাইডলাইন ।

যারা একেবারে নতুন তারা বিসিএস প্রিলির জন্য এভাবে সময় ভাগ করে নিয়ে স্টাডি শুরু করতে পারেন —
বাংলা – ১০ দিন
ইংরেজি – ১০ দিন
গনিত – ৭ দিন
বিজ্ঞান – ৭ দিন
সাধারণ জ্ঞান – ১৫ দিন ( ৮ দিন বাংলাদেশ এবং ৭ দিন আন্তর্জাতিক )
অন্যান্য – ৭ দিন

এভাবে এই সময়ের মাঝে প্রতিটি বিষয়ের যা পারবেন মোটামুটি ভাবে স্টাডি করুন , এরপর অন্য বিষয় শুরু করবেন । শুধুমাত্র একটি বিষয় নিয়ে পড়ে থাকলে অন্য বিষয় গোছানো হবেনা । কোন নির্দিষ্ট বিষয়ে স্পেশালিষ্ট হবার চেয়ে প্রতিটি বিষয়ে মোটামুটি দক্ষ হওয়াটা আপনার জন্য খুব জরুরী । শুরুতে বিগত বছরের প্রশ্নগুলো দেখে নিতে পারেন । একবার সব বিষয় মোটামুটি স্টাডি শেষ হলে এরপর আবার ১ দিন করে সময় নিয়ে ঝালাই করে নিন প্রতিটি বিষয় । পরীক্ষার আগের ৩ দিন শুধু ডাইজেস্ট টাইপ বই বা সালতামামি দেখে যেতে পারেন । নিজের ওপর আস্থা রাখবেন । সবাই পরীক্ষার হলে সবকিছু পারবে না এটাই স্বাভাবিক, কিন্তু নিজের লব্ধ জ্ঞান থেকে কতটুকু কাজে লাগাতে পারলেন সেটাই দেখার বিষয় । স্টাডি তো কমবেশি সবাই করে, কিন্তু সবার প্রয়োগ তো আর একরকম হয়না । অযথা অনেক বেশি স্টাডি না করে শুরু থেকে গুরুত্বপূর্ণ টপিকগুলো আগে পরে ফেলার চেষ্টা করবেন । সময় নষ্ট না করে স্টাডি চালিয়ে যান । পড়ার সময় মোবাইল এ কথা বলা , নেট এ থাকা , গান শোনা , টিভি দেখা এসব বাদ দিয়ে জাস্ট স্টাডি করুন । অন্য কোন দিকে যেন concentration না থাকে ।

আমরা বেশির ভাগই বাস্তবতাকে মেনে নিতে পারিনা, নিজের maximum চেষ্টা করতে হবে, passion dedication অনেক বেশি থাকতে হবে , শুধু বসে বসে স্বপ্ন দেখলে কিন্তু ভালো পজিশনে যাওয়া খুব কঠিন হবে । সময়মত সময়ের সঠিক ব্যবহার করতে হবে । সময় চলে গেলে কিন্তু দেখবেন সময়ের প্রবাহ অনেককেই সাফল্যের দ্বারপ্রান্তে টেনে নিয়ে গেছে কিন্তু আপনি সেখানেই পড়ে রয়েছেন । এমনটি যেন না হয় । কে কখন স্টাডি শুরু করলো কি করলো না এসব নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে আপনি নিজেকে প্রস্তুত করুন । নিজেকে বেশি সময় দিলে দেখবেন নিজেকে প্রস্তুত করতে খুব বেশি সময় লাগছেনা । যারা নিজের ওপর আত্মবিশ্বাস রেখে নিজের কাজে অটল থাকে এবং অল্পে হতাশ না হয়ে ধৈর্য রাখে তারা কোন না কোনভাবে জীবনে বড় পজিশনে পৌঁছাবেই । যেখানেই যে বিষয়েই স্টাডি করেন না কেন নিজের চেষ্টা , আত্মবিশ্বাস আর ধৈর্য থাকলে আপনি সফল হবেনই । অন্যের দিকে তাকাবেন না আর গুজবে কান দেবেন না, তাহলে আপনার জন্য সফল হওয়াটা অনেকটা সহজ হবে । প্রতি মুহূর্তে নিজেকে upgrade করার চেষ্টা করুন । অন্য কিছুতে সময় কম দিয়ে নিজেকে আর বইএর মাঝে বেশি সময় দিন । চেষ্টা চালিয়ে যান । সফল আপনিই হবেন । ভালো থাকবেন সবাই . Good luck guys .